Share this Post

শেষ কয়েক মাসে অবসাদ এমনভাবেই জাঁকিয়ে বসে ছিল যে বেশ কয়েকজন মনোবিদের পরামর্শে তিনি বলছিলেন। মুম্বই পুলিশ এর রেকর্ড করা বয়ানে এমনই জানা গিয়েছিল। মুম্বই পুলিশ সুশান্তের দুজন মনোবিদকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। তারা দুজনই জানিয়েছিলেন যে সুশান্ত শেষের দিকে অবসাদগ্রস্ত ছিলেন এবং বাইপোলার ডিজঅর্ডার ভুগছিলেন এবং ওষুধ খাওয়াও বন্ধ করে দিয়েছিলেন।

২০১৯ এর নভেম্বর মাসে প্রথমবার হাসপাতালে সুশান্তের সঙ্গে দেখা হয় এই মনোবিদের। তখনই তিনি দেখেন সুশান্ত অবসাদে ভুগছিলেন। মনোবিদ বলছেন, “সেই সময় সুশান্ত বলেছিলেন তার ঠিকমত ঘুম আসেনা খিদে পায় না।